দুই থেকে ২৯ বছর বয়স। এ বয়সসীমার মধ্যে নিজেদের ১৩ টি সন্তানকে অবর্ণনীয় অবস্থায় বাসার ভিতর আটকে রেখেছিল তাদের জন্মদানকারী পিতামাতা। শুধু তা-ই নয়। তাদের ওপর চালানো হয়েছে নির্যাতন। আর ঘরের বাইরে যাতে তারা যেতে না পারে এ জন্য অনেকের পায়ে শিকল পরানো হয়েছিল। তার অন্যপ্রান্ত বাঁধা ছিল খাটের সঙ্গে।

এর ফলে ওই সন্তানগুলো অপুষ্টিতে মরার মতো অবস্থায় পৌঁছে যায়। এমন অবস্থার তাদের ভিতর থেকে ১৭ বছর বয়সী একটি বালিকা পালিয়ে বাইরে চলে আসে। আসার সময় ঘরের মধ্যে পাওয়া একটি মোবাইল ফোন নিয়ে আসে। তা ব্যবহার করে ফোন দেয় পুলিশে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার করে ওই ১৩ সন্তানকে। এ ঘটনাটি ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যানজেলেসে। লস অ্যানজেলেস থেকে প্রায় ১১৩ কিলোমিটার পূর্বদিকে পেরিস নামে একটি এলাকা আছে। সেখানেই ওই বাড়িটি। এই বাড়িতে নিজের ছেলেমেয়েদের ওই অবস্থায় আটকে রাখেন পিতা ডেভিড অ্যালেন তুরপিন (৫৭) ও মা লুইস আন্না তুরপিন (৪৯)। সঙ্গে সঙ্গে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সোমবার সেখানকার রিভারসাইড কাউন্টির শেরিফের অফিস থেকে বলা হয়েছে, ওই বাড়ি থেকে ১২টি সন্তানকে উদ্ধার করা হয়েছে। আর বাইরে ছিল একজন। উদ্ধার করে দেখা গেছে এসব সন্তানের মধ্যে সাতজনই প্রাপ্ত বয়স্ক। তারা মারাত্মকভাবে অপুষ্টিতে ভুগছে এবং তারা প্রচ- নোংরা অবস্থায় রয়েছে। গত রোববার তাদের ভিতর থেকে প্রায় ১০ বছর বয়সী একটি বালিকা পালিয়ে বের হয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ অভিযান চালায় একতলা বাসভবনে। সেখান থেকে পিতা অ্যালেন ও মা লুইসকে গ্রেপ্তার করে তাদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে নির্যাতনের ৯টি করে অভিযোগ ও শিশুদের ভীতসন্ত্রস্ত্র করে তোলার জন্য ১০ দফা অভিযোগ আনা হয়েছে। তাদের প্রতিবেশীরা বলেছেন, ওই পরিবারের সদস্যরা বাইরে বের হতো না বললেই চলে। ওই বাড়িটির পাশ দিয়ে অক্টোবরের এক রাতে হেঁটে যাচ্ছিলেন প্রতিবেশী ওয়েন্ডি মার্টিনেজ (৪১)। তিনি বলেছেন, ওই পরিবারের সঙ্গে সেই একবারই তার কথা হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ   এবার দিল্লি জামে মসজিদকে মন্দির দাবি বিজেপি নেতার

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

18 + 1 =