শ্রীলংকার প্রধান বন্দর কলম্বোতে একটি মেগা প্রকল্পে ১০০ কোটি ডলার বিনিয়োগ করছে চীন। এ অর্থে সেখানে নির্মাণ করা হবে তিনটি ৬০তলা বিশিষ্ট ভবন। এর মধ্য দিয়ে ভারতীয় মহাসাগরে নিজেদের প্রভাব বৃদ্ধি করছে বেইজিং। এ কথা বলেছে বার্তা সংস্থা এএফপি। এর আগে কলম্বো ইন্টারন্যাশনাল ফিনান্সিয়াল সিটি উন্নয়নে ১৪০ কোটি ডলার বিনিয়োগে চুক্তি হয় চীন ও শ্রীলংকার মধ্যে। শ্রীলংকার প্রধান বন্দরের কাছেই এই কলম্বো ইন্টারন্যাশনাল ফিনান্সিয়াল সিটি অবস্থিত।

কৌশলগত দিক দিয়ে এটি চীনের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই প্রকল্প হাতে নিয়েছিলেন শ্রীলংকার সাবেক প্রেসিডেন্ট মাহিন্দ রাজাপাকসে। এখন দুটি দেশটি আশা করছে, এই প্রকল্প ভারত মহাসাগরে একটি অর্থনৈতিক কেন্দ্র সৃষ্টি করবে, যেমনটি সিঙ্গাপুরে এবং ইউরোপে হয়েছে। ফলে শত শত কোটি ডলার বৈদেশিক বিনিয়োগ আসবে এবং সৃষ্টি হবে হাজার হাজার কর্মক্ষেত্র। প্রকল্পের জন্য ২৬৯ হেক্টর (৬৭২ একর) জমির মধ্যে শতকরা ৬০ ভাগ অধিগ্রহণ করা হয়েছে। আগামী এক বছরের মধ্যে এসব কাজ সম্পন্ন হওয়ার কথা রয়েছে। তবে পুরো প্রকল্প বাস্তবায়নে কতদিন লাগবে তা বলা হয় নি। মঙ্গলবার শ্রীলংকার নগর উন্নয়ন বিষয়ক মন্ত্রী চম্পিকা রানাওয়াক বলেছেন, তিনটি ভবন নির্মাণে ১০০ কোটি ডলার বিনিয়োগ করবে চায়না হারবার (কোম্পানি)। এ ভবনগুলো নির্মিত হলে শ্রীলংকায় অধিক পরিমাণে বিদেশী বিনিয়োগ আকৃষ্ট হবে। ২০১৪ সালে কলম্বো সফরে যান চীনের প্রেসিডেন্ট সি জিনপিং। এর পরই আনুষ্ঠানিকভাবে এই প্রকল্প হাতে নেয়া হয়। কিন্তু শ্রীলংকায় সরকারে পরিবর্তন আসে। এ জন্য কাজ স্থগিত ছিল। ২০১৬ সালের আগস্টে শ্রীলংকায় নতুন সরকারের অধীনে একটি নতুন চুক্তি হয় চীনের রাষ্ট্রীয় কোম্পানি চায়না কমিউনিকেশন্স কনস্ট্রাকশন কোম্পানির (সিসিসিসি) সঙ্গে। তবে এ প্রকল্প নিয়ে ভূরাজনৈতিক উদ্বেগ দেখা দেয়। বিশেষ করে আঞ্চলিক সুপার পাওয়ার হিসেবে পরিচিত ভারতের পক্ষ থেকে এ নিয়ে ছিল কড়া উদ্বেগ। উল্লেখ্য, কার্গোতে করে আমদানি ও রপ্তানিতে কলম্বো হলো ভারতের জন্য একটি প্রাণকেন্দ্র। সেই কলম্বোতে উন্নয়নকাজে যুুক্ত হয়েছে চীন। শুধু তা-ই নয়। চীন যুক্ত হয়েছে মিয়ানমারের সঙ্গেও। সেখানে রাখাইন রাজ্যের দক্ষিণাঞ্চলে তারা বন্দর, অর্থনৈতিক জোন গঠনের উদ্যোগ নিয়েছে। সরাসরি গ্যাস ও তেল পাইপলাইন নিয়ে গেছে চীন পর্যন্ত। এসবের মাধ্যমে আঞ্চলিক পর্যায়ে আধিপত্য বিস্তার করছে চীন। বিষয়টি যে ভারত ভাল চোখে নিতে পারছে না এটা অতি স্বাভাবিক।

আরও পড়ুনঃ   কাবুলে আত্মঘাতী হামলা, নিহত ৩০

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

three + 12 =