সংবিধান অনুযায়ী বর্তমান সরকারের অধীনে আগামী নির্বাচন অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে ছাড় দিতে রাজি নয় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

বুধবার নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সঙ্গে সংলাপে নির্বাচনকালীন সরকার প্রশ্নে এমন মনোভাব তুলে ধরবে আওয়ামী লীগের প্রতিনিধিদল।

এর আগে ইসির সঙ্গে সংলাপে বিএনপির পক্ষ থেকে ‘নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সহায়ক সরকারে’র অধীনে নির্বাচনের প্রস্তাব করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ এর সম্পূর্ণ বিপরীত অবস্থান নিয়ে বলছে, বিএনপির এ দাবি মানতে গেলে সংবিধান সংশোধন করতে হবে। নির্বাচনের মাত্র এক বছর আগে এর কোনো সম্ভাবনা নেই।

বুধবার সকাল ১১টায় ইসি সচিবালয়ে অনুষ্ঠেয় সংলাপে সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের ২২ সদস্যের প্রতিনিধি দল অংশ নেবে। এ সময় দলের ১১ দফা প্রস্তাবের মূল দাবিই থাকবে, নির্বাচন বিষয়ে সংবিধানে যা বলা আছে, তার কোনো রকম ব্যত্যয় করা যাবে না। অর্থাৎ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন ক্ষমতাসীন বর্তমান সরকারের অধীনেই আগামী নির্বাচন হতে হবে। তবে ভোটের সময় সংসদ বলবৎ থাকলেও শেষ তিন মাসে সংসদের কোনো অধিবেশন বসবে না।

সংলাপের প্রতিনিধি দল: ইসির সঙ্গে সংলাপে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বাধীন ২২ সদস্যের প্রতিনিধি দলে রয়েছেন দলের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, এইচটি ইমাম, মশিউর রহমান, মোহাম্মদ জমির, রশিদুল আলম; সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, মোহাম্মদ নাসিম, সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, আবদুর রাজ্জাক, মুহাম্মদ ফারুক খান, রমেশ চন্দ্র সেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, দীপু মনি, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান; কোষাধ্যক্ষ এইচএন আশিকুর রহমান, প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ, দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ এবং কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ সদস্য এবিএম রিয়াজুল কবির কাওসার।

তবে স্ত্রীর অসুস্থতার কারণে দেশের বাইরে থাকায় সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের সংলাপে যোগ দেওয়ার সম্ভাবনা নেই।

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

13 + 11 =