এবার ‘পদ্মাবত’ চলচ্চিত্রের প্রযোজক ও পরিচালক সঞ্জয় লীলা বানসালীকে শিক্ষা দেবেন শ্রী রাজপুত করনি সেনা। উগ্রবাদী এই সংগঠন সঞ্জয় লীলা বানসালীর মা লীলা বানসালীকে নিয়ে চলচ্চিত্র তৈরি করছে। ছবির নাম ‘লীলা কি লীলা’। পরিচালনা করবেন অরবিন্দ ভিয়াস। ছবিটি তৈরি করতে খরচ হবে ৪-৫ কোটি রুপি। রাজস্থানের চিত্তরগড়ে আয়োজিত সাংবাদ সম্মেলন করেছে সংগঠনটি। এখানে শ্রী রাজপুত করনি সেনার জেলা সভাপতি গোবিন্দ সিং বলেন, ‘আমাদের মাকে অপমান করেছেন সঞ্জয় লীলা বানসালী। কিন্তু মাকে কীভাবে সম্মান দেখাতে হয়, তা এবার তাঁকে শেখানো হবে। পরবর্তী ১৫ দিনের মধ্যে ছবির কাজ শুরু হবে। এখন ছবির চিত্রনাট্য লেখার কাজ হচ্ছে।’

এদিকে ‘পদ্মাবত’ মুক্তি পাওয়ার পর সঞ্জয় লীলা বানসালীর মুঠোফোন নম্বর ছড়িয়ে দেওয়া হয় রাজপুতদের মধ্যে। শ্রী রাজপুত করনি সেনার মুখপাত্র জানান, ‘পদ্মাবত’ তৈরি করার যোগ্য জবাব এবার সঞ্জয় লীলা বানসালীকে দেবেন ‘দেশভক্তরা’।

এদিকে দেশজুড়ে শ্রী রাজপুত করনি সেনার তুমুল বিরোধিতা সত্ত্বেও গতকাল বৃহস্পতিবার প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে সঞ্জয় লীলা বানসালীর ছবি ‘পদ্মাবত’। তার আগে বুধবার সন্ধ্যায় মাল্টিপ্লেক্সগুলোতে ছিল ‘পেড প্রিভিউ’। হামলার ভয় থাকার পরও সেই প্রিভিউ থেকে প্রায় ৫ কোটি রুপি আয় হয়েছে। বলিউডের বাণিজ্য বিশেষজ্ঞদের হিসাব অনুযায়ী বৃহস্পতিবার ছবি মুক্তির প্রথম দিনে বক্স অফিস থেকে প্রায় ২০ কোটি রুপি আয় করেছে।

বলিউডের বাণিজ্য-বিশেষজ্ঞ কোমল নাহটা বলেন, ‘নেতিবাচক প্রচারটা অবশ্যই প্রচার। ছবি ঘিরে বিতর্কে “পদ্মাবত”-এর লাভ হয়েছে। যাঁদের এই ছবি ঘিরে আগ্রহ ছিল না, তাঁদেরও কৌতূহল তুঙ্গে।’

‘পদ্মাবত’ ছবির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ভায়াকম-এইটিন। প্রতিষ্ঠানটির প্রধান অংশীদার মুকেশ আম্বানির রিলায়্যান্স গোষ্ঠী। ভায়াকম-এইটিনের মুখপাত্র সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘আমরা আপ্লুত। ১০ লক্ষাধিক দর্শক এরই মধ্যে ছবিটা দেখেছেন। চার হাজারের বেশি স্ক্রিনে ছবিটা প্রদর্শন করা হচ্ছে। অধিকাংশ শো হাউসফুল।’

‘পদ্মাবত’ ছবিতে অভিনয় করেছেন দীপিকা পাডুকোন, রণবীর সিং এবং শহিদ কাপুর।

আরও পড়ুনঃ   বিতর্কের পর...

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

one + 17 =