স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমনের মতো মাদককে প্রতিরোধ করা হবে।
মাদকের ভয়াবহতা সম্পর্কে জনসচেতনতা সৃষ্টির জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের প্রতি সামাজিক আন্দোলন গড়ার আহ্বান জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শনিবার কুমিল্লা জেলার বরুড়া উপজেলা পরিষদের মিলনায়তনে আইনশৃংখলা কমিটির এক সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।
অতিতের যে কোন সময়ের চেয়ে আইন শৃংখলা পরিস্থিতি এখন ভাল উল্লেখ করে তিনি বলেন, দেশ আজ নিরাপত্তার চাদরে আবৃত।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ দমনে পুলিশের ভূমিকা অনন্য সাধারণ। কারাগারে আটককৃতদের মধ্যে শতকরা ২০ জন মাদক অপরাধী। তিনি মাদকের বিরুদ্ধে ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য সকলস্তরের জনগণের প্রতি আহবান জানান।
মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। তিনি দেশকে অন্ধকার থেকে আলোর দিকে নিয়ে যাচ্ছেন। এখন আর দশ বছর আগের বাংলাদেশ নেই। প্রধানমন্ত্রীর প্রচেষ্টায় অর্থনৈতিক ভঙ্গুরতা দূর করে দেশ আজ উন্নয়নশীল দেশে পরিনত হচ্ছে।
তিনি বলেন, পুলিশ বাহিনীকে ব্যাপক পরিবর্তন ও আধুনিকায়ন করা হয়েছে। জনবান্ধব পুলিশ সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ দমনের মতো মাদক নির্মূলে শতভাগ সফলতা আনতে সক্ষম হবেন বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
তিনি বলেন, ইতোমধ্যে সীমান্তবর্তী দেশ ভারত ও মিয়ানমারের সাথে মাদক পাচার রোধে কূটনৈতিক তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।
আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, মানুষের মানসিকতার পরিবর্তন হলে ইভটিজিং ও বাল্য বিবাহ বন্ধ হবে।
সভায় অন্যান্যের মধ্যে সংসদ সদস্য অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাবেক নৌবাহিনী প্রধান রিয়ার এডমিরাল আবু তাহের, চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি, ড. এস এম মনিরুজ্জামান, জেলা প্রশাসক মো. জাহাংগীর আলম, পুলিশ সুপার মো. শাহ আবিদ হোসেনসহ উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
সভা শেষে মন্ত্রী বরুড়া উপজেলার আবদুল লতিফ ভূইয়া সড়ক উদ্বোধন ও মনোহরপুর নূরানী মাদ্রাসার ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। পরে তিনি নলুয়া হাইস্কুল আয়োজিত এক আলোচনা সভায় যোগদান করেন।

আরও পড়ুনঃ   গুমের স্বীকারোক্তি

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

13 + ten =