ঘরে তার ৩৬ বছর বয়সী যুবতী স্ত্রী। এরপরেও তিনি ঘরে তুলেছেন স্বর্ণকেশী এক সেক্সডলকে। প্রতি সপ্তাহে অন্তচারবার তিনি সেই নতুন সেক্সডলের সঙ্গে সঙ্গমে লিপ্ত হন। নিজের ৫৮ বছর বয়সী স্বমীর সঙ্গে একটি তরুণী রূপি সেক্সডল দেখে ঐ ব্যক্তির স্ত্রীও এখন বেজায় খুশি।

কি? শুনে অবাক হচ্ছেন? অবাক তো হওয়ারই কথা। ৫৮ বছর বয়সী জেমস নামের এক ব্যক্তি কয়েক মাস আগে প্রায় ২,২৩,৭৫৫ টাকা দিয়ে কিনে নিয়ে এসেছেন ৫ ফুট লম্বা একটি সেক্সডলকেঐ পুতুলটি দেখতে অবিকল মানুষের মতো। বেশ আধুনিক কলাকৌশলে নির্মিত হয়েছে ঐ পুতুলটি। এমনকি শরীর ছুঁয়ে দেখতেই অনুভব করা যায় ঠিক মানুষের শরীরের উষ্ণতা ঐ পুতুলের গায়ে

সঙ্গমের সময় জলজ্যান্ত মানুষের চেয়ে সেক্সডলের অংশগ্রহণে রতিক্রিয়ার পরিপূর্ণতা পাওয়া যায় বেশী, বললেন জেমস নামের ঐ ব্যক্তিটি। জেমস আরো বলেন, ‘এই পুতুলটির শারীরিক ঠন থেকে শুরু করে সব কিছু এতই নিখুঁত যে, এখন এই প্রাণহীন পুতুলটি আমার কাছে যৌন খেলনার চেয়েও বেশি কিছু।’

এদিকে জেমসের স্ত্রী বলেন, ‘ আমার  স্বামী চাইলেই আমাকে ধোঁকা দিয়ে বিভিন্ন নারীর সঙ্গে সম্পর্কে জড়াতে পারত, তাছাড়া আমার চোখ ফাঁকি দিয়ে পরকীয়াতেও আটকে যেতে পারত। কিন্তু জেমস তা করেনি, সে আমার বিশ্বাস রেখেছে’।

জেমসের স্ত্রী আরো  বলেন, ‘ঐ সেক্সডল? টাতো একটা পুতুল মাত্র। আমার সতীন তো আর না। তবে জেমস অন্য নারীর সঙ্গে যৌন স্থাপন না করে পুতুলকে সময় দিচ্ছে, তাতেই আমি খুশি।’

সূত্র: ডেইলি মেইল।

তাশফিন ত্রপা

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

2 × one =