পাকিস্তানের বিরুদ্ধে আরো কঠোর অবস্থান নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। ২৪ থেকে ৪৮ ঘন্টার মধ্যে এমন পদক্ষেপ ঘোষণার কথা বলা হয়েছে। একদিন আগে পাকিস্তানকে দেয়া ২৫ কোটি ৫০ লাখ ডলারের সামরিক সহায়তা স্থগিতের সিদ্ধান্ত নিশ্চিত করে ওয়াশিংটন। এর ফলে পাকিস্তানে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে। এরই মধ্যে নতুন পদক্ষেপ ঘোষণার কথা জানিয়েছে তারা। এ খবর দিয়েছে পাকিস্তানের প্রভাবশালী পত্রিকা ডন-এর অনলাইন সংস্করণ।

এতে বলা হয়, বুধবার নিয়মিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেস সেক্রেটারি সারাহ স্যান্ডার্স বলেছেন, গত বছর দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যে নীতি ঘোষণা করেছিলেন তারই ফলোআপ হিসেবে ইসলামাবাদের বিরুদ্ধে এসব পদক্ষেপ নিচ্ছে ওয়াশিংটন। প্রেসিডেন্ট ডেসব প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তিনি শুধু তা-ই রক্ষা করছেন। উল্লেখ্য, পাকিস্তান তার বাধ্যবাধকতা পূর্ণাঙ্গভাবে মেনে চলছে না বলে এর আগে অভিযোগ করেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। গত বছর আগস্টে ডনাল্ড ট্রাম্প বলেছিলেন, পাকিস্তান সন্ত্রাসী সংগঠনগুলোর জন্য একটি নিরাপদ স্বর্গরাজ্য। এ বিষয়ে আমরা আর নীরব থাকতে পারি না। তিনি এ সময় হুঁশিয়ারি দেন। বলেন, পাকিস্তানকে দেয়া গুরুত্বপূর্ণ সহায়তা কর্তন করা হবে। সারাহ স্যান্ডার্স বুধবার বলেন, আমরা জানি পাকিস্তান সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আরো অনেকটা করতে পারে। আমরা চাই তারা আরো সক্রিয় হোক এবং তা করে দেখাক। ট্রাম্প মনে করছেন, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে পাকিস্তান পর্যাপ্ত চেষ্টা করছে না। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে আরো কি পদক্ষেপ নেয়া হবে তা আগামী কয়েকদিনের মধ্যে ঘোষণা করা হতে পারে। বিশেষ করে আমি বলবো, আপনারা তার কিছুটা দেখতে পাবেন ২৪ থেকে ৪৮ ঘন্টার মধ্যে। উল্লেখ্য, মঙ্গলবার পাকিস্তানকে দেয়া সামরিক সহায়তা স্থগিতের ঘোষণা দেয় ট্রাম্প প্রশাসন। এর মধ্য দিয়ে তিনি পাকিস্তানের অর্থনীতিতে কঠোরতা আরোপ করলেন। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের টুইট অনুসারে পাকিস্তান হলো মিথ্যাবাদী।

Comments

comments

আরও পড়ুনঃ   উ. কোরিয়াকে নিয়ে উত্তেজনার প্রেক্ষাপটে ইউরোপ সফরে যাচ্ছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

11 + eighteen =