ঢাকা-আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্প নির্মাণে ১২ হাজার ৫৬৬ কোটি ৪৭ লাখ টাকা মূল্যের ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে সরকারের ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

আজ বুধবার সচিবালয়ে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সেতু বিভাগ এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

অতিরিক্ত সচিব মোস্তাফিজুর রহমান জানান, এই প্রকল্পটি নির্মাণের লক্ষ্যে চীন সরকার কর্তৃক মনোনীত প্রতিষ্ঠান চায়না ন্যাশনাল মেশিনারি ইমপোর্ট অ্যান্ড এক্সপোর্ট কর্পোরেশনের সঙ্গে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের ইপিসি (ইঞ্জিনিয়ারিং, প্রোকিউরমেন্ট অ্যান্ড কনস্ট্রাকশান) টার্নকি কনট্রাক-এর ভিত্তিতে বাংলাদেশি মুদ্রায় ১২ হাজার ৫৬৬ কোটি ৪৭ লাখ টাকা মূল্যের ক্রয় প্রস্তাব কমিটি অনুমোদন করেছে। প্রস্তাব অনুমোদনের পরই নির্মান কাজ শুরু হবে বলে আশা করেন তিনি।

প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে চীন সরকার মনোনীত চায়না ন্যাশনাল মেশিনারি ইমপোর্ট অ্যান্ড এক্সপোর্ট কর্পোরেশনকে (সিএমসি)। নির্মাণ পরবর্তী পাঁচ বছরের জন্য এটি পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বেও থাকবে কোম্পানিটি। আলোচ্য সময়ে টোল আদায়ের মাধ্যমে তুলে নেবে তাদের বিনিয়োগ।

সেতু বিভাগের তথ্য মতে, ঢাকা-আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণের জন্য গত ২৪ অক্টোবর  ১৬ হাজার ৯০১ কোটি টাকার একটি প্রকল্প অনুমোদন দেয় একনেক। এটি নির্মাণ হলে এশিয়ান হাইওয়েতে নেটওয়ার্ক এবং প্রায় সকল জাতীয় সড়কের সঙ্গে যুক্ত হওয়ার পাশাপাশি ঢাকার সঙ্গে ৩০টি জেলার সংযোগ স্থাপনকারী আবদুল্লাহপুর-আশুলিয়া-বাইপাইল-চন্দ্রা করিডোরের যানজট কমে আসবে।

এছাড়া উত্তরবঙ্গগামী যাত্রীদের ঢাকা ছাড়ার জন্য গাবতলী, সভার এবং চন্দ্রা এলাকায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে বসে থাকতে হবে না। অতি অল্প সময়ের মধ্যেই ঢাকা থেকে চন্দ্রা পৌঁছে যাবে এসব গাড়ি।

প্রকল্পটি বাস্তবায়নে চীনের এক্সিম ব্যাংক ঋণ দেবে ১০ হাজার ৯৫০ কোটি টাকা। বাকি ৫ হাজার ৯৫১ কোটি টাকা রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে দেওয়া হবে।  অর্থসূচক

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

19 − six =