বৃষ্টির বাধায় থিরুভানানথাপুরামে মঙ্গলবার ৮ ওভারে নেমে আসা তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে ৬৮ রানের লক্ষ্য দিয়ে বিরাট কোহলির দল জিতেছে ৬ রানে।

ভারতের ইনিংসের সময়ই দেখা গেছে ব্যাটিংয়ের জন্য মোটেও সহায়ক নয় গ্রিনফিল্ড ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামের উইকেট। বল একটু থেমে ব্যাটে আসে। এসেই শট খেলা কঠিন। সেই সুবিধা কাজে লাগিয়েছেন ভারতের বোলাররা।

প্রথম ওভারেই আঘাত হানেন ভুবনেশ্বর কুমার। তার স্লোয়ারে বোল্ড হয়ে ফিরেন মার্টিন গাপটিল। ছক্কায় শুরু করা কলিন মানরো বেশিদূর যেতে পারেননি। বুমরাহকে উড়ানোর চেষ্টায় ধরে পড়েন রোহিত শর্মার হাতে।

৯ বলের মধ্যে দুই ওপেনারকে হারানো নিউ জিল্যান্ডের ইনিংস সেভাবে আর গতি পায়নি। রান আউট হয়ে ফিরেন অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন।

শেষের দিকে কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমের ছক্কায় আশা জাগে নিউ জিল্যান্ডের। কিন্তু শেষ রক্ষা করতে পারেনি অতিথিরা।

২ ওভারে ৯ রান দিয়ে ২ উইকেট নিয়ে ভারতের সেরা বোলার বুমরাহ। ২ ওভারে মাত্র ৮ রান দিয়ে চাহাল ম্যাচের সবচেয়ে হিসেবী বোলার। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ভারতের দুই ওপেনার রোহিত ও শিখর ধাওয়ান খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি। কেউই টাইমিং করতে পারছিলেন না। তৃতীয় ওভারে বোলিংয়ে এসে পরপর দুটি স্লোয়ার অফ কাটারে তাদের বিদায় করেন টিম সাউদি।

ইশ সোধিকে একটি করে ছক্কা-চার হাঁকিয়ে সেই ওভারেই ফিরেন কোহলি। রানের জন্য সংগ্রাম করা ভারতকে লড়াইয়ের পুঁজি এনে দেন মনিশ পান্ডে (১১ বলে ১৭) ও হার্দিক পান্ডিয়া (১০ বলে ১৪*)।

সাউদি ২ উইকেট নেন ১৩ রানে। সোধি ২ উইকেট নিতে খরচ করেন ২৩ রান।

এর আগে ওয়ানডেও শেষ ম্যাচ জিতে সিরিজ ঘরে তুলেছিল ভারত।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
ভারত: ৮ ওভারে ৬৭/৫ (রোহিত ৮, ধাওয়ান ৬, কোহলি ১৩, আয়ার ৬, পান্ডে ১৭, পান্ডিয়া ১৪*, ধোনি ০*; বোল্ট ১/১৩, স্যান্টনার ০/১৬, সাউদি ২/১৩, সোধি ২/২৩)

নিউ জিল্যান্ড: ৮ ওভারে ৬১/৮ (গাপটিল ১, মানরো ৭, উইলিয়ামসন ৮, ফিলিপস ১১, গ্র্যান্ডহোম ১৭*, নিকোলস ২, ব্রুস ৪, স্যান্টনার ৩*; ভুবনেশ্বর ১/১৮, বুমরাহ ২/৯, চাহাল ০/৮, কুলদীপ ১/১০, পান্ডিয়া ০/১১)

সিরিজ: ২-১ ব্যবধানে জয়ী ভারত

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

20 − 6 =