আগামী নির্বাচনকে সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য করার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পদত্যাগ পূর্বশর্ত বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। তিনি বলেন, আজকে দেশে গণতন্ত্র গুম, গণতন্ত্র মৃত। এই গণতন্ত্র যে কোথায় আছে এটি আমাদের সবচেয়ে বেশি দুশ্চিন্তা এবং উদ্বেগের বিষয়।
আজ শনিবার দুপুরে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) মিলনায়তনে এক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব বলেন গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।
জাতীয়তাবাদী যুবদল ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি রফিকুল ইসলাম মজনুর মুক্তি দাবিতে এই সভার আয়োজন করে ঢাকাস্থ ফেনী জেলা জাতীয়তাবাদী ফোরাম।
সংগঠনের সভাপতি ও ছাত্রদল নেতা ওমর ফারুক ডালিমের সভাপতিত্বে সভায় আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আউয়াল মিন্টু, কেন্দ্রীয় নেতা শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ, আফরোজা আব্বাস, আ ক ম মোজাম্মেল হক প্রমুখ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে বিএনপির যতটুকু জনসমর্থন ও যোগ্যতা দরকার বর্তমানে তা তার চেয়ে বেশি আছে। এখন শুধু সময়মতো সাহসী ভুমিকা নেয়া দরকার। যে পথে হাটলে জনগণ আমাদের সাথে থাকবে সে পথে আমাদের অগ্রসর হতে হবে। তবে সেই পথটি ধরার পূর্ব শর্ত হলো বর্তমান সরকারকে বিদায় দেয়া। হতে পারে এটা সম্মানজনক বিদায়।
তিনি বলেন, আজকে সবাই বলছে সরকার নাকি নিরাপদে প্রস্থানের পথ খুঁজছে। ইতিমধ্যে আমাদের দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া আদালতে বলেছেন তিনি ক্ষমা করে দিয়েছেন। তো পথের তো একটা সূচনা বেগম জিয়া করে দিয়েছেন। এখন কিছু প্রক্রিয়া সম্পন্ন করলেই কিন্তু সরকারের বের হওয়ার পথ নিশ্চিত হয়।
বিএনপির শীর্ষ এই নেতা বলেন, জনগণ চায় মুক্তি ও ভোটের অধিকার। তারা কারো ক্ষতি চায়না। এখন যদি সরকার মানুষের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দিয়ে সুষ্ঠু ভোটের ব্যবস্থা নেন তবেই কমফোর্টঅ্যাবল পথ রেডি। আর সুষ্ঠু ভোটের পূর্বশর্ত হলো প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ।

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

six + 19 =