চন্দিকা হাথুরাসিংহের প্রিয় ক্রিকেটার ছিলেন বলে বারবার খারাপ করেও সুযোগ পাচ্ছিলেন সৌম্য সরকার। এমন গুঞ্জন হরহামেশাই ছিল। অনেক দিনের কৌতূহলি গুঞ্জনের উত্তর গতকাল সরাসরিই দিলেন সৌম্য সরকার। মিরপুর শেরেবাংলায় নিজের অবস্থান জানিয়ে সৌম্য বলেন, ‘আমি ভালো খেললে দলে থাকব। কে পছন্দ করে, কে করে না এগুলো জানি না। অনেক মানুষেরই কথা থাকতে পারে। কারণ একটা ক্লাসে স্যার সবাইকে পছন্দ করে না। যাকে পছন্দ করে না সে পেছনে লাগতেই পারে। ভালো না খেললে দলে সুযোগ পেতাম না, আমাকে পছন্দও করত না। আমি যদি স্কুলেই ভর্তি না হই তাহলে কিভাবে পছন্দ করবে। স্কুলে ভর্তি হওয়ার জন্য আমাকে পরীক্ষা দিতে হয়েছে। যখন ভালো করেছিলাম তখন কোচ পছন্দ করেছেন।’

হাথুরে দায়িত্ব ছেড়ে চলে যাওয়ায় সৌম্য সরকার জাতীয় দলে থাকবেন কিনা তা সময়ই বলে দেবে। তবে মাঠের বাইরের গুঞ্জন-সমালোচনা না ভেবে নিজের কাজটুকু পরিপূর্ণভাবে করতে চান বাঁহাতি এ ব্যাটসম্যান। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ত্রিদেশীয় ও শ্রীলঙ্কা সিরিজে চ্যালেঞ্জ দেখছেন সৌম্য। একে তো পুরনো কোচ যোগ দিয়েছেন প্রতিপক্ষ দলে, আবার বাংলাদেশের সাম্প্রতিক ফর্ম তলানিতে। তাই ঘরের মাঠে চ্যালেঞ্জ দেখছেন সৌম্য।

তবে সাফল্য পেতে সমাধানও রয়েছে টাইগার ওপেনারের কাছে। আক্রমণাত্মক ও প্রভাব বিস্তার করে খেললে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ভালো ফল পাওয়া যাবে বলে বিশ্বাস সৌম্য সরকারের। ‘আমরা প্রভাব বিস্তার করে খেলতে পারলে ফল পক্ষে আসবে। আর প্রভাব বিস্তার করে খেলার জন্য নিশ্চয়ই পরিকল্পনা করব। নতুন বছর। ওদের কোচও বদল হয়েছে, আমাদেরও হচ্ছে। টিমের পরিকল্পনার পরিবর্তন হবে। প্রত্যাশা থাকবে যেন নতুন বছরটা ভালো শুরু করতে পারি।’

প্রতিপক্ষের কোচ হাথুরেকে নিয়ে বাড়তি ভয় নেই সৌম্যের। ‘উনি আমাদের সম্পর্কে বেশি জানেন বলেই বেশি দিতে চাইবে। আর সেটি করতে গেলে অনেকেই পূরণ করতে পারবে না। বেশি জানলেও সমস্যা। কোচতো আর খেলবে না- খেলবে প্লেয়াররা। তাই অতদূর চিন্তা করছি না।’

আরও পড়ুনঃ   'খেলবো তো জেতার জন্যই'

উইকেটে সেট হয়েও বারবার বিসর্জন দিয়েছেন সৌম্য। ২৫-৩০ কিংবা ৩০-৪০ রানে আউট হচ্ছেন নিয়মিত। সমস্যাটা ধরতে পারছেন না সৌম্য নিজেও। বড় ইনিংস খেলার পথে মানসিক ঘাটতির কথাই জানালেন তিনি, ‘আমি হয়তো ৩০ রান করার পর দলের কথা চিন্তা করেছি। ওই সময় স্লো হলে দলের অবস্থানও স্লো হবে। নিজের জন্য খেললে হয়ত ওভারকাম করা সম্ভব। কিন্তু দলের চিন্তা করে খেললে একটু কঠিন হয়ে যায়। একেক দিন একেকভাবে আউট হচ্ছি। হয়ত পরিকল্পনা পাল্টাতে গিয়ে এমনটা হচ্ছে। নির্দিষ্ট করে কোথায় সমস্যা হচ্ছে সেটি বলা কঠিন। এ বছর আমার যে চাওয়া ছিল সেটি পূরণ করতে পারিনি। চেষ্টা করব আগামীতে নিজের লক্ষ্যটা পূরণ করতে।’

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

three × 4 =