হঠাৎ করেই গতিবিধি পরিবর্তন করে চুক্তিতে যাচ্ছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং কিম জং। তবে হঠাৎ করেই ট্রাম্পের এই পরিবর্তন ভালোভাবে দেখছেন না রকেটম্যান কিম জং। জাপান সফর সেরে বুধবার সকালে স্ত্রী মেলানিয়াকে নিয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার মাটিতে পা রাখেন ট্রাম্প।

সামরিক মর্যাদা দিয়ে তাদের স্বাগত জানায় সোল। আর তার ঠিক পর-পরই হেলিকপ্টারে করে মার্কিন প্রেসিডেন্ট উড়ে যান ক্যাম্প হামফ্রেজ বিমানঘাঁটিতে। যেখানে দক্ষিণ কোরীয় সেনার সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরেই মহড়া চালিয়ে আসছে মার্কিন সেনা।

সঙ্গী জাপানও। উত্তর কোরিয়ার সীমান্ত থেকে ৩৫ মাইল দূরে দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সোলে দাঁড়িয়েই ট্রাম্প বললেন, ‘গোটা মানবজাতির স্বার্থেই এ বার পরমাণু অস্ত্র পরীক্ষা বন্ধ করা উচিত কিমের। ঈশ্বর করুন, আমাদের না যেন সত্যিই সেনা নামাতে হয়!’

এবার হয়তোবা পিয়ংইয়ংয়ের সঙ্গে যুদ্ধ মনোভাব পরিত্যাগ করবে এ মার্কিন প্রেসিডেন্ট। বরং জাপান থেকে কিমকে কার্যত যুদ্ধের হুমকিই দিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। পেন্টাগনও জানিয়ে দিয়েছিল, পিয়ংইয়ংয়ের পরমাণু ভাণ্ডার ধ্বংস করতে যুদ্ধই একমাত্র পথ।

তবে কাল পর্যন্ত ট্রাম্পের সুর কিন্তু যুদ্ধের হুমকিই দিয়ে যাচ্ছিল, হঠাৎ করে সুর পাল্টানোর কারণ হিসেবে মনে করা হচ্ছে, উত্তর কোরিয়ার খুব কাছাকাছি রয়েছেন বলেই হয়তো ট্রাম্পের এই সুর! তবে ট্রাম্পের এই সুর কতদিন থাকবে তাই নিয়ে সন্দিহান রয়েছে উত্তর কোরিয়া।

Comments

comments

একটি উত্তর লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here

15 + 1 =